ঢাকা শুক্রবার, ১৯শে জুলাই ২০২৪, ৫ই শ্রাবণ ১৪৩১


শেরপুর জেলা সমিতি ঢাকা’র ২০২৪ - ২০২৭ নির্বাহী পরিষদের পরিচিতি ও শুভেচ্ছা বিনিময় সভা

বৃহত্তর ময়মনসিংহের উন্নয়ন হলেই বৃহত্তর ময়মনসিংহবাসীর ভাগ্যের পরিবর্তন সম্ভব


১০ জুলাই ২০২৪ ১২:৫২

আপডেট:
১০ জুলাই ২০২৪ ১৩:০৪



৯ জুলাই মঙ্গলবার মিরপুর ১৪/সেকশন ১ এর বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমিতির অডিটোরিয়ামে শেরপুর জেলা সমিতি ঢাকা ২০২৪ -২০২৭ নির্বাহী পরিষদের পরিচিতি ও শুভেচ্ছা বিনিময় সভা ২০২৪ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব, জাতীয় সংসদের সরকারী প্রতিষ্ঠান বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বৃহত্তর ময়মনসিং সমিতির সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদ এমপি বলেন, বৃহত্তর ময়মনসিংহের উন্নয়ন হলেই কেবল বৃহত্তর ময়মনসিংহবাসীর ভাগ্যের পরিবর্তন সম্ভব। কোন নির্দিষ্ট জেলার উন্নয়ন দিয়ে বৃহত্তর ময়মনসিংহবাসীর ভাগ্যের পরিবর্তন সম্ভব নয়। তিনি প্রত্যেক জেলার নেতৃবৃন্দকে জনগণের স্কিল ডেভেলপ করার আহ্বান জানান। তিনি শেরপুর জেলার উন্নয়নে এর আগেও কাজ করেছেন এবং আগামী দিনে সংসদে শেরপুর জেলার বিভিন্ন দাবি- দাওয়া নিয়ে কথা বলবেন বলে আশ্বস্ত করেন।


অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি ও সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সাবেক সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, শেরপুর জেলার উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব এবং বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমিতির সভাপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। তিনি আশা ব্যক্ত করে বলেন আগামী দিনে সকল সংগঠন, ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে কাজ করে যাব। তিনি শেরপুর এর উন্নয়নের জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

সংগঠনের নির্বাহী সভাপতি ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব আব্দুস সামাদ ফারুক বলেন, শেরপুর জেলা অন্যান্য জেলার তুলনায় শিক্ষা, চিকিৎসা, যোগাযোগ সব ক্ষেত্রেই পিছিয়ে আছে। সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করলেই কেবল এই অঞ্চলের উন্নয়ন সম্ভব।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও ডিপিডিসির তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুর রাজ্জাক শুভেচ্ছা জানিয়ে সংগঠনের সবাইকে পরিচয় করে দিয়ে আগামী দিনে সবাইকে সাথে নিয়ে সাথে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। বিগত বছর গুলিতে সবাই যেভাবে সহযোগিতা করেছে এবং আগামী দিনে সবাইকে সাথে নিয়ে শেরপুর জেলার জন্য কাজ করে যেতে চান।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণ ব্যাংকের বর্তমান চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. সাইফুল মজিদ, সাবেক অতিরিক্ত সচিব দিলদার আহমেদ, বাংলাদেশ ট্রেড এন্ড ট্যারিফ কমিশনের সাবেক সদস্য ও সাবেক যুগ্ম সচিব শাহ মো. আবু রায়হান আলবেরুনী, সাবেক যুগ্ম সচিব পঙ্কজ পাল, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অর্থোপেডিক বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল আসিফ, শেরপুর জেলা সমিতির ঢাকার সাবেক সভাপতি প্রফেসর ডা. মোঃ সোহরাব আলী, জাতীয় সংসদের বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির একান্ত সচিব ও শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. আশরাফ আলীসহ ঢাকায় অবস্থানরত শেরপুর জেলার বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিবর্গ।


শেরপুর জেলা সমিতি আবুল কালাম আজাদ বৃহত্তর ময়মনসিংহ সমিতি